আন্তর্জাতিক

লেবাননের ৯০ শতাংশ লোক গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের অব্যাহত হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী

লেবাননের ৯০ শতাংশ লোক গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের অব্যাহত হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী

অনলাইন ডেস্কঃ

এক জনমত জরিপে লেবাননের ৯০ শতাংশ লোক গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের অব্যাহত হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে। স্থানীয় সংবাদপত্র ‘আল-আখবার’ সোমবার এ রিপোর্ট করেছে।
বৈরুত-ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান,কৌশলগত ও উন্নয়ন সংক্রান্ত গবেষণা প্রতিষ্ঠান কনসালটেটিভ সেন্টার ফর স্টাডিজ অ্যান্ড ডকুমেন্টেশনের পরিচালিত সমীক্ষার উদ্ধৃতি দিয়ে স্থানীয় সংবাদপত্রটি বলেছে, ‘লেবাননের সব সেক্টরে ৯৪.১ শতাংশ শিয়া, ৯২.৪ শতাংশ সুন্নি, ৮৩.৮ শতাংশ খ্রিস্টান এবং দ্রুজ সম্প্রদায়ের ৯২.৯ শতাংশ একমত যে যুক্তরাষ্ট্রই ক্রমাগত উত্তেজনা এবং ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধ করতে ব্যর্থতার মূল কারণ।’
ইসরায়েল-হামাস সংঘাতের চার মাস ধরে পরিচালিত এই জরিপ এবং লেবাননের বিভিন্ন সম্প্রদায় এবং অঞ্চলের ৪শ’ জনের একটি নমুনা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। জরিপে দুই-তৃতীয়াংশ লেবানিজ ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি ‘লেবাননের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলনের (হিজবুল্লাহ) সমর্থনকে লেবাননের জাতীয় স্বার্থের সম্পূরক বিবেচনা করে।’
জরিপ অনুসারে, প্রায় ৬০ শতাংশ বিশ্বাস করেন, হিজবুল্লাহর শক্তি প্রদর্শন ইসরায়েলকে লেবাননের বিরুদ্ধে ব্যাপক যুদ্ধ পরিচালনা থেকে বিরত রাখবে। অধিকন্তু, প্রায় ৬০ শতাংশ একমত যে ‘প্রতিরোধের অক্ষের মধ্যে লেবাননের উপস্থিতি দেশটির অবস্থানকে শক্তিশালী করে এবং আগ্রাসন প্রতিরোধে সহায়তা করে।’
লেবানন-ইসরায়েল সীমান্তে ২০২৩ সালের ৮ অক্টোবর থেকে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ ইসরায়েলের দিকে কয়েক ডজন রকেট নিক্ষেপ করার পর ইসরায়েল জবাবে দক্ষিণ লেবাননে কামান হামলা চালায়।
লেবাননের নিরাপত্তা সূত্রে জানা যায়, হিজবুল্লাহ এবং ইসরায়েলের মধ্যে সংঘর্ষে লেবাননের পক্ষ থেকে ৩০২ জন নিহত হয়েছে। যার মধ্যে ২০৫ জন হিজবুল্লাহ সদস্য এবং ৫৭ জন বেসামরিক নাগরিক রয়েছে।


Discover more from Bangovumi

Subscribe to get the latest posts to your email.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Discover more from Bangovumi

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading